ইফতারিতে ভেজাল আতঙ্ক :

খাদ্যে ভেজাল ও এর ক্ষতিকারক প্রভাব

দিনভর রোজা পালন শেষে ইফতারিতে ’ভেজালমুক্ত’ হিসেবে কী খাবেন তা নিয়ে রোজাদারদের মনে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে। ইফতারির অপরিহারয উপকরেণের মধ্যে রয়েছে ছোলা, পিঁয়াজু, বেগুনি, মুড়ি  ও জিলাপি। এর প্রতিটিই ভেজালের শিকার। মুড়ি ছাড়া ইফতার অকল্পনীয়। সেই মুড়িকে সাদা করতে ব্যাবহৃত হচ্ছে ট্যানারিতে ব্যবহারয বিষাক্ত রাসায়নিক সোডিয়াম হাইড্রোসালফাইড। বড় বড় দানার মুড়ি তৈরি করা হয় রাসায়নিক সার দিয়ে। জিলাপি দীর্ঘক্ষণ মচমচে রাখতে ব্যবহৃত হচ্ছে পোড়া মবিল। ভাজাপোড়ায় ব্যবহৃত তেল কড়াই থেকে আদৌ কোনো দিন সরানো হয় কিনা তা নিয়ে সংশয় থেকেই যায়। বেগুনি, পিঁয়াজু, চপ ইত্যাদি তেলেভাজা ইফতারিসামগ্রী আকর্ষনীয় করতে ব্যবহৃত হচ্ছে কেমিক্যাল রং। ইফতারির আরেক অনুসঙ্গ খেজুর। মেয়াদোত্তীর্ণ, পঁচা দুর্গন্ধযুক্ত খেজুরে বাজার সয়লাব হয়ে আছে। দেশীয় ফল-ফলারির অবস্থা আরও শোচনীয়। ফরমালিন আর কার্বাইড মেশানো ফল-ফলারি নিয়েই সাজানো হচ্ছে ইফতার। প্রতি বছর ইফতার পণ্যে এই  মহড়ার পুনরাবৃত্তি ঘটলেও ভেজালচক্রের কাছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সব চেষ্টা যেন ব্যর্থতায় পরিণত হয়। খাদ্যপণ্যে ভেজালের বিষ প্রতিরোধে একের পর এক আইন করা হচ্ছে। পরিচালনা করা হচ্ছে ভ্রাম্যমান আদালত। তবু মিলছে না কাঙ্খিত ফল। ভেজাল পণ্য গছানোর ‘প্রতিযোগিতা’ দেশময়। এই দৌরাত্ম পবিত্র রমজান ঘিরে বেড়ে যায়। সিটি করপোরেশনের বাজার পরিদর্শকরা বলেন, দোকানে বা ফুটপাতে যে ইফতারি বিক্রি হয় তার প্রায় ৯০ ভাগই ভেজাল। ভেজালের পাশাপাশি রয়েছে বাসি বা পুরনো খাবার বিক্রির প্রবণতা। এসব কারণে নির্ভেজাল ইফতারি খাবার কিনতেই পাওয়া যায় না। শুধু রাজধানীতেই ছোট-বড় পাঁচ সহস্রাধিক হোটেল- রেস্তোরার পাশাপাশি রমজান উপলক্ষে আরও প্রায় ২০ হাজার মৌসুমি ইফতারি বিক্রেতা নানা আয়োজনে প্রস্তুতি নিয়েছেন। টার্মিনাল, বাসস্ট্যান্ড, রাস্তা-ফুটপাত, অলিগলি সর্বত্রই চলছে ইফতারি বাজার বসানোর সীমাহীন প্রতিযোগিতা। একই সঙ্গে চলছে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে ভেজাল খাদ্যসামগ্রী তৈরির নানা প্রস্তুতি। ইফতারি পণ্যে ক্ষতিকারক রং, ফরমালিন, পোঁড়া মবিল, পোঁড়া তেল, সার কার্বাইড প্রভৃতি ব্যবহারেরর ফলে মানুষের মাঝে আগাম আতঙ্ক বিরাজ করছে। বিশেষ করে কাজের প্রয়োজনে যাদের বাসার বাইরে ইফতার করতেহয় এবং দোকানিদের তৈরি খাবারে ইফতার করতে হয় তাদের কোন বিকল্পও নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *