বাদামি চালের পুষ্টিগুন

বাদামি চালের পুষ্টিগুন

বৈজ্ঞানিক জার্নালে প্রকাশিত গুরত্বপূর্ণ হেলথ টিপস-২
বাদামি চালের পুষ্টিগুন

সাদা চালের ভাত খেতে বেশ সুস্বাদু হলেও পুষ্টি বিচারে এগিয়ে বাদামি চাল। আলাদা ভাবে  অনেক প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যাওয়অর ফলে চাল ঝকঝকে সাদা হয়ে ঔঠে। তবে এতে পুষ্টিগুন অনেকটাই ঝরে যায়। এক কাপ অ-প্রক্রিয়াধীন বাদামী চালে ৮৮ ভাগই ম্যাঙ্গানিজ থাকে। আরো রয়েছে সেনিয়াম ২৭.৩ ভাগ, ম্যাগনেসিয়াম থাকে ২০.৯ ভাগ। ট্রাইটোফেন ১৮.৭ ভাগ এবং মাত্র ১২ ভাগ ক্যালরী থাকে। এত পুষ্টিকর সমৃদ্ধচাল নিঃসন্দেহে মানব দেহের কন্য উপকারী। বাদামী চাল যখন প্রক্রিয়াজাতকরনের মাধ্যমে সাদা হয় ততক্ষণে হারিয়ে ফেলে অনেক পুষ্টিগুণ। কিন্তু প্রক্রিয়াজাতের কারণে আয়রণ, ভিটামিন বি-৩, বি-৬, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ হারিয়েহয় সাদা চাল।প্রাকৃতিক তেল সমৃদ্ধ বাদামী চাল হৃৎপিন্ডের জন্য বেশ উপকারী। এ  চালে আঁশের ঘনত্ব থাকায় দেহের অভ্যন্তরীণ অন্ত্রসমূহ ভালো থাকে। আমরা জানি রক্তে চিনির পরিমান বাড়া মানেই ডায়বেটিস। আর সাদা চালের তুলনায় বাদামী চালে রক্তে চিনির হাল অধিক দ্রুত হ্রাস করে। মাত্র এক কাপ বাদামী চাল সারা দিনের ম্যাঙ্গানিজের অভাব পূরণ করে। ম্যাঙ্গানিজ আপনার শরীরের কলেস্টারল নিয়ন্ত্রনে সাহায্য করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *