আর নয় হেঁচকি

আর নয় হেঁচকি

আর নয় হেঁচকি
আর নয় হেঁচকি

কোথাও দাওয়াত খেতে বসে হঠাৎ দেখলেন আপনার পাশের সঙ্গীটির হেঁচকি উঠতে শুরু করেছে। ব্যাপারটা তার জন্য যেমন বিরক্তকর, তেমনি আশপাশের মানুষের জন্যও অস্বস্তিকর। সাধারনত দ্রুতগতিতে খাওয়া-দাওয়া করলে, বুক জ্বালাপোড়া করলে, অতিরিক্ত কাজের চাপে থাকলে অথবা মানসিকভাবে উদ্বিগ্ন হলে হেঁচকি ওঠে। তবে এমন পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পেতে কোনো জটিল চিকিৎসার প্রয়োজন নেই। হেঁচকি উঠলে এক চা চামচ চিনি বা বাদাম খেলে হেঁচকি থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। কারণ চিনি বা বাদামের দানা গলায় এক ধরনের অস্বস্তির সৃষ্টি করে, যা নিজেকে আগের অবস্থানে ফিরিয়ে নিতে সাহায্য করে। কিছুক্ষন নিঃশ্বাস বন্ধ করে রাখলে মস্তিস্কের শিথিলতা স্নায়ু বেয়ে ফুসফুস পর্যন্ত এসে হেঁচকি দূর করে। এছাড়া পানি খাওয়ার সময় আমাদের শ্বাস-প্রশ্বাসে পরিবর্তন আসে যা হেঁচকি ওঠাকে নিয়ন্ত্রণ করে। হেঁচকি থামানোর জন্য কাউকে চমকে দেয়ার রীতি বেশ প্রচলিত। কারণ হঠাৎ ভয় পেলে বা বিস্ময়ে চমকে উঠলে মানুষের মস্তিস্কে আচমকা ধাক্কা লাগে এবং নিঃশ্বাসে বাধা আসে। ফলে হেঁচকি থেমে যায়। নিঃশ্বাসে এমন বাধা দিতে খুব টক জাতীয় খাবার যেমন- ভিনেগার, লেবুর রস, তেতুল ইত্যাদি খেতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *